জেলার সংবাদ

চট্টগ্রামে পরিক্ষাহীন বন্ধ স্কুল গুলোতে টাকা নিয়ে ভর্তির সুযোগ সৃষ্টি

ঢাকা,১১জানুয়ারি, (ডেইলি টাইমস২৪): এম, এ কাশেম চট্টগ্রামঃ উত্তর চট্টগ্রামের সর্বোত্র-ই পরিক্ষা বিহীন বন্ধ স্কুল গুলোতে এক শ্রেণী থেকে আরেক শ্রেণীতে টাকা নিয়ে ভর্তি করার সুযোগ সৃষ্টি করে দেয়া হচ্ছে বলে প্রাপ্ত তথ্য সূত্রে জানা গেছে। সূত্র জানায়, শিক্ষার দিক্ দিয়ে বাংলাদেশের অগ্রগামীতা হয়তো বা কোনো একটি দেশ চাইতেছেনা। আর তাই ‘করোনা’ ভাইরাস’র অজুহাতে বাংলাদেশের শিক্ষা প্রতিষ্ঠান গুলো বন্ধ রেখে শিক্ষা ব্যবস্থাকে ধ্বংশ করে দেয়ার চক্রান্ত চাণানো হেেছ। অথচ, সারা দেশে- বিভিন্ন মার্কেটে ঠাঁসাঠাঁসি করে কেনা-কাটা, বিভিন্ন পরিবহনে মানুষে মানুষে সয়লাব, হাট-বাজারের কথা না-ই বা বলা হলো এবং গরুর বাজারে মানুষে মানুষে ঠেলাঠেলি চললে ও কিন্তু, তাতে ‘করোনা’ ভাইরাস’র কোনো সমস্যা নেই। শুধু মাত্র সমস্যা-হচ্ছে- শিক্ষা প্রতিষ্ঠান গুলোতে ! তা ও আবার সরকারি কিন্তু, বে-সরকারি গুলোতে নয়। দেশের অন্যান্য স্থানের কথা আপাত: দৃষ্টির পিছনে রেখে উত্তর চট্টগ্রামের বিভিন্ন উপজেলার শিক্ষা প্রতিষ্ঠান গুলোর বাস্তব চিত্র তুলের ধরার প্রয়াস মাত্র। আর তা চলতে থাকায়-অভিজ্ঞজনরা মনে করেন, বাংলাদেশের মানুষ কি এখনো বুজার বাকি আছে যে, সকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠান গুলো কেনো বন্ধ রাখা হয়েছে বা হচ্ছে ? তবে, অনেকে আবার মনে করেন যে, সরকারের ওই কথা ও মানতে হবে। সরকারি সিদ্ধান্তের বাইরে কিন্তু কেউ যেতে পারবেন্।া সুতরাং, সরকারি সিদ্ধান্ত মানা ছাড়া কারো কোনো গত্যন্তর নেই। অবশ্য, সরকারি সিদ্ধান্ত মোতাবেক সরকারি ও আধা-সরকারি সকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ থাকলে ও কিন্তু, ছাত্র-ছাত্রীদের গলায় কাঁটা বিঁদে যাওয়ার মতো অবস্থা সৃষ্টি করে তাদের অভিভাবকদের কাছ থেকে টাকা আদায় করে নেয়া হচ্ছে যথারিতি ! বিগত প্রায় ১বছর শিক্ষা প্রতিষ্ঠান গুলো বন্ধ রয়েছে। অথচ, পূর্বের নিয়ম মোতাবেক ছাত্র-ছাত্রীদের কাছ থেকে যথারিতি টাকা নেয়া হচ্ছে বাট বন্ধ রাখা হয়নি। এ ছাড়া- ১বছর শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ থাকায় পিছেয়ে থাকা শিক্ষার্থীদের কোনো রকম ক্লাশ করন: ছাড়া এবং কোনো রকম পরিক্ষার আয়োজন না করে প্রাইমারী স্কুলের প্রথম শ্রেণী থেকে দ্বিতীয় শ্রেণীতে, দ্বিতীয় থেকে তৃতীয়তে, তৃতীয় থেকে চতুর্থতে এবং চতুর্থ থেকে প ম শ্রেণীতে তুলে দেয়া হয়েছে। এ ছাড়া- প ম শ্রেণী থেকে হাই স্কুলে, বালিকা বিদ্যালয়ে ও মাদ্রাসায় পাঠিয়ে ভর্তি করার সুযোগ করে দেয়া হয়েছে ! প্রাইমারী স্কুলের প ম শ্রেণী থেকে হাই স্কুল এবং বালিকা বিদ্যালয় অথবা মাদ্রাসায় ভর্তি হওয়ার জন্য প্রতিজন থেকে ৩০০-৪০০ টাকা করে নেয়া হয়েছে । অনুরুপ ভাবে হাই স্কুল এবং বালিকা বিদ্যালয় অথবা মাদ্রাসায় ভর্তি হওয়ার জন্য নেয়া হয়েছে প্রতিজন থেকে ১হাজার প াশ (১০৫০) টাকা করে। এবং বইয়ের জন্য প্রতিজন থেকে নেয়া হয়েছে ২০টাকা করে। গত ১সপ্তাহ ধরে মীরসরাই উপজেলার বিভিন্ন স্কুল গুলোতে এ অবস্থা চলতে থাকার সংবাদ বিভিন্ন জনের কাছ থেকে জানতে পেরে এ প্রতিনিধি গতকাল সরেজমিন জেলার দামিদামী স্কুল হিসেবে বারইয়ারহাট বালিকা বিদ্যালয়ে গিয়ে সামাজিক দুরত্ব বজায় না রাখা ছাত-ছাত্রী ও অভিভাবকদের ভিঁড় এবং টাকা নেয়ার বিষয়টি প্রত্যক্ষ করেন। এ প্রসঙ্গে জানতে চাইলে স্কুলের প্রধান শিক্ষ এনামুল হক জানান, সিদ্ধান্ত মোতাবেক ৬ষ্ঠ শ্রেণীতে ভর্তি হওয়াদের কাছ থেকে এক হাজার প াশ (১০৫০) টাকা নেয়ার কথা। এবং বইয়ের জন্য ২০ টাকা নেয়ার কথা ও স্বীকার করেন তিনি। এ ভাবে চলতে থাকায় শিক্ষার্থীদের আগামী দিনের জন্য পড়া-লেখার অশনি সংকেত বলে মনে করছেন শিক্ষানুরাগি ও শিক্ষার্থী এবং তাদের অভিভাবকরা।

ঢাকা,১১জানুয়ারি, (ডেইলি টাইমস২৪)//আর এ কে:

Show More

আরো সংবাদ...

Back to top button