বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি

রয়েল বেঙ্গল টাইগার দিয়ে গবেষণা শুরু করেছে খুলনা কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়

ঢাকা,২৩ জানুয়ারি, (ডেইলি টাইমস২৪): সাব্বির ফকির, খুলনাঃ
সুন্দরবনের পাহারাদার ও বাংলাদেশের জাতীয় প্রাণি রয়েল বেঙ্গল টাইগার দিয়েই গবেষণা কার্যক্রম শুরু করেছে খুলনা কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক ও শিক্ষার্থীরা।

খুলনা কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক ও শিক্ষার্থীদের কাছ থেকে জানা গেছে, গত ২০ জানুয়ারি খুলনার জাহানাবাদ ক্যান্টনমেন্টস্থ বনবিলাস চিড়িয়াখানায় বার্ধক্য জনিত কারণে একটি রয়েল বেঙ্গল টাইগার মারা যায়। চিড়িয়াখানা কর্তৃপক্ষ মৃত বাঘটিকে মাটি চাপা না দিয়ে ভেটেরিনারি শিক্ষায় সহায়তার ইচ্ছা পোষণ করে চিড়িয়াখানা কর্তৃপক্ষ। এমন ইচ্ছার খবরটি খুলনা প্রাণিসম্পদ অফিসের মাধ্যমে জানতে পারে খুলনা কৃষি বিশ্ববিদ্যালয় (খুকৃবি) কর্তৃপক্ষ। বিষয়টি জেনেই বিশ্ববিদ্যালয়ের সংশ্লিষ্ট বিভাগের শিক্ষকদের পক্ষ থেকে তাৎক্ষণিক ভাবে খুকৃবি’র ভাইস চ্যান্সেলর প্রফেসর ড. মো: শহীদুর রহমান খানকে জানানো হয় ।

এদিকে গুরুত্বপূর্ণ এই বিষয়টি অবগত হওয়ার সঙ্গে সঙ্গেই মৃত বাঘটি পরিদর্শন ও বিশ্ববিদ্যালয়ের স্বার্থে কার্যকর ব্যবস্থা গ্রহণের নির্দেশ প্রদান করেন সংশ্লিষ্ট বিভাগের শিক্ষকদের। বিশ্ববিদ্যালয়ের ভাইস চ্যান্সেলরের তৎক্ষনাৎ নির্দেশে বিশ্ববিদ্যালয়ের ভেটেরিনারি, এনিম্যাল অ্যান্ড বায়োমেডিকেল সায়েন্সেস অনুষদের শিক্ষক ও শিক্ষার্থীদের একটি মেডিকেল টিম চিড়িয়াখানায় মৃত বাঘটিকে পরিদর্শন করেন।

পরিদর্শনকৃত খুকৃবি’র মেডিকেল টিমে উপস্থিত ছিলেন খুকৃবি’র এনিম্যাল নিউট্রিশন বিভাগের সহকারী অধ্যাপক ড. মো: তসলিম হোসেন, ফিজিওলজি বিভাগের সহকারী অধ্যাপক ড. এম এ হান্নান এবং বিভিন্ন বিভাগের প্রভাষকবৃন্দের মধ্যে ডাঃ পাপিয়া খাতুন, ডাঃ জান্নাত হোসেন, ডাঃ স্বরূপ কুমার কুন্ডু, ডাঃ শাহাবুদ্দীন আহমেদ, ডাঃ মোঃ শহীদুল্লাহ্, ডাঃ শারমিন জামান, নাজমুল হক অপু সহ ছাত্র-ছাএীবৃন্দ। পরিদর্শন শেষে জাহানাবাদ ক্যান্টনমেন্ট কর্তৃপক্ষের অনুমতিক্রমে বাঘটিকে খুকৃবি’র ভেটেরিনারি, এনিম্যাল অ্যান্ড বায়োমেডিকেল সায়েন্সেস অনুষদের নিকট হস্তান্তর করা হয় । পরবর্তীতে বাঘটি দৌলতপুরে অবস্থিত খুকৃবি’র অস্থায়ী ক্যাম্পাসে আনা হয় এবং বাঘটির চামড়া, কংকাল, ও অভ্যন্তরীন গুরুত্বপূর্ণ অঙ্গ সমূহকে সংরক্ষণ করা হয়। যা ভবিষ্যতে ভেটেরিনারি, এনিম্যাল অ্যান্ড বায়োমেডিকেল সায়েন্সেস অনুষদের বিভিন্ন বিভাগের ব্যবহারিক পাঠদানে ও গবেষণার কাজে ব্যবহার করা হবে।

ঢাকা,২৩ জানুয়ারি, (ডেইলি টাইমস২৪)//আর এ কে:

Show More

আরো সংবাদ...

Back to top button