জেলার সংবাদপ্রধান সংবাদ

ঘোড়াঘাট পুলিশের হস্তক্ষেপে বাল্য বিয়ে বন্ধ

ঢাকা, ২৯ জানুয়ারি, (ডেইলি টাইমস২৪): ঘোড়াঘাট (দিনাজপুর) থেকে মাহতাব উদ্দিন আল মাহমুদঃ
দিনাজপুরের ঘোড়াঘাট থানা পুলিশের হস্তক্ষেপে বাল্যবিয়ের হাত থেকে রক্ষা পেয়েছে এক কিশোরী।২৮ জানুয়ারি বৃৃহস্পতিবার রাতে থানা পুলিশ ঘটনাস্থল ঘোড়াঘাট উপজেলার ২ নং পালশা ইউনিয়নের মরিচা গ্রামের মোঃ ফুয়াদুল হাসানের বাড়িতে গিয়ে বাল্যবিবাহ বন্ধ করে দেয়।ঘোড়াঘাট থানার ্অফিসার ইনচার্জ মোঃ আজিম উদ্দিন বলেন,ঘোড়াঘাট উপজেলার ২ নং পালশা ইউনিয়নের মরিচা গ্রামের মোঃ ফুয়াদুল হাসানের ৮ম শ্রেণীর মেয়ে মোছাঃ মানতারাসা খাতুন(১৩) এর সাথে ঢাকা মিরপুর -১০ সি ব্লক ভাষান টেকের মোঃ ওয়াহিদ উল্লাহর ছেলে মোঃ ইমরান হোসাইন (১৯)এর সাথে বাল্য বিয়ের প্রস্তুতি নেয় উভয় পরিবারের সদস্যরা।এদিকে বলাহার বাজারের মোঃ মুতরাজ আলীর বাসায় বিয়ের আয়োজন হচ্ছে এমন খবর পেয়ে সাব- ইন্সপেক্টর ফজলার রশিদের নেতৃত্বে সাব- ইন্সপেক্টর খুরশিদ জাহান উপ-সহকারি সাব- ইন্সপেক্টর আসমা সহ সঙ্গীয় ফোর্স নিয়ে সেখানে হাজির হয়ে জানতে পারেন শুধু মেয়েটিই নয়, এমনকি যে ছেলের সাথে বিয়ে ঠিক করা হয়েছে তারও বাংলাদেশের আইন অনুযায়ী বিয়ে করার বয়স হয়নি এবং বিয়ের দেওয়ার বিষয় নিশ্চিত হওয়ার পর তা বন্ধ করে দিয়ে ছেলে মেয়ে সহ তাদের অভিভাবককে থানায় নিয়ে আসেন।পরে ঘোড়াঘাট উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট রাফিউল আলম এর কাছে হাজির করলে তিনি দুই পরিবারের সদস্যদের বাল্যবিবাহের কুফলগুলো সম্পর্কে অবহিত করেন এবং ভ্রাম্যমাণ আদালতের মাধ্যমে ছেলের বাবা, ছেলের দুলাভাই ঘোড়াঘাট উপজেলার ভর্ণাপাড়ার আলামিন প্রধান সহ উভয়কে দশ হাজার টাকা জরিমানা করেন। সেই সাথে ছেলে-মেয়ের পূর্ণ বয়স হওয়ার আগে বিয়ে না দিতে দুই পরিবারকে সতর্ক করেন।ঘোড়াঘাট থানা অফিসার ইনচার্জ আজিম উদ্দিন ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে জানান,বাল্যবিবাহ হচ্ছে এমন সংবাদের ভিত্তিতে আমি আমার অফিসার এবং ফোর্স কে ঘটনাস্থলে পাঠায় এবং তাঁরা বিষয়টি নিশ্চিত হওয়ার পর উভয় পরিবারের অভিভাবক সহ ছেলে এবং মেয়ে কে থানায় নিয়ে আসে এবং তারা সকলে ঘটনার সত্যতা শিকার করলে ঘোড়াঘাট উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট রাফিউল আলম স্যার এর কাছে হাজির করলে তিনি দশ হাজার টাকা জরিমানা করেন বলে নিশ্চিত করেন।

ঢাকা, ২৯ জানুয়ারি, (ডেইলি টাইমস২৪)//আর এ কে:

Show More

আরো সংবাদ...

Back to top button